রাণীনগরে মাদ্রাসা ছাত্রের হাত বাঁধা অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কাজী আনিছুর রহমান,রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁর রাণীনগরে আবু হাসান সিজান (১৮) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্রের হাত বাঁধা অবস্থায় ঝুলন্ত রাশ উদ্ধার করেছে থানাপুলিশ । গত সোমবার গভীর রাতে উপজেলার ঘোষগ্রাম পীর কফিলিয়া মাদ্রাসার একটি কক্ষ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সিজান ঘোষ গ্রামের আব্দুল বারিকের ছেলে ।

জানাগেছে, আবু হাসান সিজান প্রতি দিনের ন্যায় মাদ্রাসায় পড়া লেখা শেষে রাত অনুমান ৯টা নাগাদ নিজ বাড়ীতে যাবার উদ্দেশ্যে বাই সাইকেল নিয়ে বের হয়ে চলে যায় । এর পর রাত অনুমান প্রায় ১১টা পর্যন্ত বাড়ীতে না ফিরলে সিজানের বাবা-মা তাকে খুঁজতে মাদ্রাসায় আসেন। মাদ্রাসায় খোঁজা-খুঁজির এক পর্যায়ে একটি শ্রেনী কক্ষে হাত বাঁধা অবস্থায় তীরের সাথে গলায় ব্যবহৃত রুমাল গলায় ফাঁসি দেয়া ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় । এর পর থানা পুলিশকে খবর দিলে তানাপুলিশ ওই রাতেই তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এব্যাপারে সিজানের মা সুরাইয়া সুলতানা বিনা জানান,্ওই মাদ্রাসার কয়েকজন শিক্ষার্থী আমার ছেলেকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল এবং বিষয়টি মাঝে মধ্যেই সিজান আমাকে জানাতো। এদিন মাহরীব নামাজের পর বাড়ী থেকে বের হয়ে গিয়ে অনেক রাত পর্যন্ত ফিরে না আসায় মাদ্রাসায় খুঁজতে গিয়ে হাত বাধা অবস্থায় জুলন্ত রাশ দেখতে পান। তিনি দাবি করে জানান,সিজানের ভাল পড়া লেখার প্রতি ঈর্ষান্যিত হয়ে মাদ্রাসার কতিপয় ছাত্ররা তাকে হত্যা করে লাশ ঝুলে রেখেছে।

এব্যপারে অত্র মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল আকরামূল ইসলাম জানান, মাদ্রাসার শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে প্রায় দেড় মাস আগে সিজানকে মাদ্রাসা থেকে বহিস্কার করা হয় । এর পর সিজানের বাবা-মাঢের অনুরোধে তাকে গত শুক্রবার আবারো মাদ্রাসায় নেয়া হয়।সিজান প্রতি দিন লেখা টড়া শেষে রাতে বাড়ীতে চলে যেতো এর পর আবারও সকালে মাদ্রাসায় আসতো। সিজানের সাথে মাদ্রাসার কোনও ছাত্রদের এতটুকুও মতো-বিরোধ ছিলনা । যদি সত্যিই তাকে হত্যা করা হয়ে থাকে তাহলে অন্য কেউ হত্যা করে এখানে লাশ ঝুলিয়ে রাখতে পারে।

এব্যাপারে রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ,এস এম সিদ্দিকুর রহমান জানান, খবর পেয়ে ওই রাতেই মাদ্রাসার একটি কক্ষ থেকে সামান্য হাত মোড়া ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ত্েব তার শরীরে কোথাও কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এঘটনায় ওই মাদ্রাসার ৫জন শির্ক্ষার্থীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে তাকে হত্যা করা হয়েছে নাকি সে আতœহত্যা করেছে ময়না তদন্ত রির্পোট পেলেই বোঝা যাবে। এঘটনায় থানায় একটি ইউ’ডি মামলা দায়ের করা হয়েছে ।#

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.