সৈয়দপুর লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে শিক্ষক আটক

জয়নাল আবেদীন হিরো,নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
নীলফামারীর সৈয়দপুরে লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রীকে একই কলেজের প্রভাষক কর্তৃক অপহরণের অভিযোগে শিক্ষক মাহফুজ আলমকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার ১০ মার্চ সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে সৈয়দপুর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা সূত্রে জানা যায়, সৈয়দপুর লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক মাহফুজ আলমের সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে টেকনিক্যাল কলেজ সংলগ্ন বালু পুকুর এলাকার মেয়ে একই কলেজের কমার্স ২য় বর্ষের ছাত্রী সাথে। মাঝখানে তাদের মধ্যে দ্বন্দের সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন বিকালে ছাত্রীকে ওই শিক্ষক তার ভাড়া বাসা কয়ানিজপাড়া নিম বাগান রোড, মজিবরের বাসায় ডাকে। এসময় দুই জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীকে মাহফুজ আলম ঘরে রেখে তালা দিয়ে বাহিরে যাওয়ার চেষ্টা করে। তখন ছাত্রীটি মোবাইল ফোনে তার পরিবারের লোকজনকে এ ঘটনা জানায়। খবর পেয়ে ওই ছাত্রীর মা পুলিশকে জানিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে ওই শিক্ষককে বেধর পিটুনি দেয়। এসময় পুলিশ এসে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে এবং অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

রাতে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে নারী শিশু নির্যাতন আইনে সৈয়দপুর থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ৭।আটক ও মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সৈয়দপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ শাহজাহান পাশা।

এলাকা বাসির অভিযোগ রয়েছে ওই ছাত্রীর সাথে কলেজের শিক্ষক ও বাহিরের অনেকের ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে।
আটক মাহফুজ আলম বগুড়ার জসিম চোখ সূত্রাপুর হাইস্কুল লেন সংলগ্ন এলাকার রহিমুদ্দিনের ছেলে। আটক শিক্ষককে রবিবার দুপুরে নীলফামারী জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে কথা হয় লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের উপাধক্ষ্য নজরুল ইসলাম কিশোরের সাথে তিনি বলেন, ঘটনাটি রাতেই শুনেছি। এটা শিক্ষকদের জন্য অত্যান্ত দুঃখজনক। রবিবার বিকালে স্কুলে জরুরী মিটিং ডাকা হয়েছে। মিটিংয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে চাকুরী থেকে চুড়ান্তভাবে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।#

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.