নড়াইল-১ আসনের সর্বত্র বইছে নির্বাচনী হাওয়া

ইকবাল হাসান,নড়াইল প্রতিনিধিঃ
আওয়ামী লীগের দূর্গ হিসাবে খ্যাত নড়াইল-১ (সদরের আংশিক ও কালিয়া উপজেলা) আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। আওয়ামী লীগ নেতারা দলীয় মনোনয়ন লাভের আশায় কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রাখার পাশাপাশি নিজ নিজ সংসদীয় আসনের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, চেয়ারম্যান, মেম্বর, বিশিষ্ট ব্যক্তি তথা সাধারন মানুষের সাথে মত বিনিময় শুরু করেছেন। এ আসনের বর্তমান এমপি হচ্ছেন আওয়ামীলীগ দলীয় কবিরুল হক মুক্তি। আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আসনটি ধরে রাখতে চায় ।ভোটারদের সাফ কথা সৎ ও ত্যাগী নেতা যিনি সুখে-দু:খে পাশে থাকবেন তাকে তারা প্রার্থী হিসেবে চান।

নড়াইল সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন এবং কালিয়া উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও কালিয়া পৌরসভা নিয়ে নড়াইল-১ আসন গঠিত।এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৪০ হাজার ১৪ জন।এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১লাখ ১৮ হাজার ৬শ’৮৯ জন এবং মহিলা ভোটার ১লাখ ২১হাজার ৩শ’২৫ জন। দেশ স্বাধীনের পর থেকেই এ আসনে আওয়ামীলীগের শক্ত অবস্থান রয়েছে।

আগামি সংসদ নির্বাচনে নড়াইল-১ আসন থেকে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে যাদের নাম জোরেশোরে শোনা যাচ্ছে তারা হলেন বর্তমান এমপি কবিরুল হক মুক্তি, আওয়ামীলীগ নেতা লেঃ কমান্ডার ওমর আলী (অবঃ) বিএন, নড়াইল জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন খান নিলু, আওয়ামী লীগ নেত্রী সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি নড়াইলের পূত্রবধূ অ্যাডভোকেট ফজিলাতুন নেছা বাপ্পি, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোল্যা ইমদাদুল হক, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মো.শাহীদুল ইসলাম, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক কাজী সারোয়ার হোসেন।

এমপি কবিরুল হক মুক্তি বলেন, আমার দীর্ঘ ৯ বছরের ক্ষমতাকালীন সময়ে সংসদীয় এলাকার রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে।বিভিন্ন স্থানের নদী ও খালের উপর নির্মিত হয়েছে ব্রীজ। মধুমতি ও নবগঙ্গা নদীর ভাঙ্গন রোধে স্থায়ী ব্যবস্থা করা, ভরাট হওয়া কয়েকটি খাল পূনঃখনন করা, ৯০ ভাগ মানুষ বিদ্যুতের আওতায় তার আমলে। স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মন্দিরের উন্নয়নে দেয়া অনুদানতো রয়েছেই। তিনি বলেন,নড়াইল আওয়ামী লীগের সাথে আমার পরিবারের সম্পর্ক দলের শুরু থেকে। দলের নেতা-কর্মীদের সুবিধা-অসুবিধা দেখি।তাদের বিপদ-আপদে পাশে থাকি। আগামি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী।

আওয়ামীলীগ দলীয় ত্যাগী নেতা কর্মীরা জানান, এলাকায় প্রচার-প্রচারণাসহ আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দৌঁড়ে এগিয়ে রয়েছেন বর্তমান এমপি কবিরুল হক মুক্তি এবং লেঃ কমান্ডার ওমর আলী (অবঃ)। কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানাধীন বাঐসোনা গ্রামের কৃতিসন্তান ওমর আলী এমপি হিসেবে দলীয় মনোনয়ন চাওয়া-পাওয়ার ব্যাপারে বলেন,আওয়ামীলীগ সমর্থক থাকার কারণে নৌবাহিনীর কমিশন অফিসার লেফটেন্ট্যান্ট কমান্ডার হিসেবে কর্মরত অবস্থায় আমাকে বিএনপি সরকার ১৯৯৫ সালের ১৭নভেম্বর ১৪বছরের চাকুরীর মাথায় বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠায়। আওয়ামীলীগের সঙ্গে ঘনিষ্ট যোগাযোগ থাকার কারণে ১৯৯৫ সালের ১৫ অক্টোবর আমাকে খুলনা থেকে গ্রেফতার করে ঢাকায় এনে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে। ঐ সময়কার নির্যাতনে আমার বাম পা ও বাম হাত অনেকদিন যাবত অবশ ছিল এবং বর্তমানে সে হাত-পা শুকিয়ে যাচ্ছে বলে তিনি জানান। নড়াইল-১ আসনের বিভিন্ন এলাকায় রাজনৈতিক,ধর্মীয় ও সামাজিক কর্মকান্ডে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন ওমর আলী। মাদ্রাসা,মসজিদ,গরীব রোগীদের চিকিৎসা ব্যয়,অসহায়,দরিদ্রদের সহযোগিতার পাশাপাশি হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন সামাজিক কাজ ও মন্দিরে সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছেন তিনি। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে সাড়া দিয়ে মাত্র ১৩ বছর বয়সে ভারতে গিয়ে ট্রেনিং নিয়ে দেশমাতৃকা রক্ষায় মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকরেন তিনি। নড়াইল ও আশপাশের এলাকা শত্রুমুক্তকারী বীর যোদ্ধা লেঃ কমান্ডার ওমর আলী (অবঃ) জনগনের দোয়া-অর্শিবাদ ও ভালোবাসা নিয়ে দলীয় প্রতীকে এমপি নির্বাচিত হয়ে জীবনের শেষদিন পর্যন্ত সব শ্রেণী পেশার মানুষের সেবা করতে চান।

ফজিলাতুন নেছা বাপ্পি এমপি বলেন, আমি নারীর ক্ষমতায়নের বিশ্বাসী। নারীকে মূলধারায় না আনলে দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। সে লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি। জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি (আম্বিয়া-প্রধান) শরীফ নূরুল আম্বিয়া এ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী। ওয়ার্কার্স পার্টির সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক কমরেড বিমল বিশ্বাস এবারও মনোনয়ন চাইবেন বলে জানান। কালিয়া উপজেলা জাসদের (ইনু) সভাপতি আকতার হোসেন রাঙ্গাও মনোনয়ন প্রত্যাশী।

এ আসনে বিএনপির কয়েকজন প্রার্থী মনোনয়নের জন্য কেন্দ্রে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। তারা হলেন,জেলা বিএনপি’র সভাপতি বিশ^াস জাহাঙ্গীর আলম, জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ডা.শফিকুল হায়দার পারভেজ,জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি সাজেদুর রহমান সুজা, খুলনা মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি সাহারুজ্জামান মর্তুজা।

এ ছাড়া জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রার্থী হিসেবে জাপার কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য,জেলা কমিটির সদস্য সচিব ও নড়াইল-১ আসনের দলীয় সমন্বয়কারী মিল্টন মোল্যার নাম শোনা যাচ্ছে। #

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.