বিএনপি-জামায়াত নাশকতা করলে তা প্রতিহত করা হবে— ওবাইদুল কাদের

মো. নাজমুল হক, পাবনা প্রতিনিধি: আওয়ামী লীগের ট্রেনসফরে পাবনার ঈশ্বরদীর মুলাডুলির পথসাভায় দলের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি- জামায়াত আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে ২০১৪ সালের মতো আবারও জ্বালাও-পোড়াও-বোমাবাজির ষড়যন্ত্র করছে।

জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি বিগত দশ বছরে ১০ মিনিট রাজপথে আন্দোলন সংঘঠিত করতে পারেনি। বিএনপি বলেছিল রোজার ঈদের পর আন্দোলন হবে। রোজার ঈদের পর আবার কোরবানির ঈদের পর রাজপথে আন্দোলন হবে। শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের জোয়াড়ে বিএনপির আকাশে এখন আষাঢ়ের মেঘের ঘনঘটা, তাদের সামনে আর কোনদিনই ঈদ আসবে না।

ট্রেনসফরের সফরসঙ্গি পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ভুমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর সভাপতিত্বে উত্তরাঞ্চলমুখী ট্রেনসফরে মুলাডুলি রেলস্টেশনে দুপুর ১টার দিকে আয়োজিত পথসভায় ওবায়দুল কাদের জনতার উদ্দেশ্যে বলেন, বিএনপি বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে বারবার ষড়যন্ত্র করতে ব্যর্থ হয়েছে। এখন তারা ষড়যন্ত্রের পথ খুঁজছে। বিগত নির্বাচনের মতো যদি আগামী নির্বাচনেও বিএনপি-জামায়াত নাশকতার চেষ্টা করে, তবে তা আপনারা প্রতিহত করবেন।

নেতাকর্মীদের একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে আরো বলেন, ফুল দিয়ে লাভ নেই-ফুল শুকিয়ে যাবে, ব্যানার-ফেস্টুন এক সময় মুছে যাবে, কাগজও ছিড়ে যাবে। শেখ হাসিনার নাম হৃদয়ে লিখে রাখুন, সেটাই রয়ে যাবে।

তিনি বলেন, কোন্দল- বিশৃঙ্খলা করবেন না। বিশৃঙ্খলাকারীদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে। দুয়েকদিনের মধ্যে বিশৃঙ্খলাকারীদের শোকজ পাঠানো হবে।

সফরে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ এমপি, দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি. এম মোজাম্মেল হক, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ-দফতর সম্পাদিক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

মুলাডুলিতে ভূমিমন্ত্রীর নেতৃত্বধীন আওয়ামী লীগ ও দলীয় সকল অংগ সংগঠনের হাজার হাজার নেতা,কর্মী ও সমর্থক সমাবেত হয়। এসময় পাবনা সদরের এমপি গোলাম ফারুক প্রিন্স, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল রহিম লালসহ বিভিন্ন উপজেলার চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র ও নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য,কমলাপুর স্টেশন থেকে শনিবার (০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮) সকাল ৮টায় আ. লীগের নির্বাচনী ট্রেন ছেড়েছে। ট্রেন সফরের মধ্য দিয়ে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোতে নির্বাচনী সফর শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। সরকারের উন্নয়ন কাজ তৃণমূলে পৌঁছে দিতে এবং দলকে শক্তিশালী করতেই উত্তরাঞ্চলে আওয়ামী লীগের ট্রেন সফর। #

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.