পার্বতীপুরে চার হাজার হিন্দু পরিবারের দীর্ঘদিনের দাবী পূরণ- লাশ দাহ করার শ্মশানঘাটের উদ্বোধন ॥

মো:এমদাদুল হক, পার্বতীপুর।  দিনাজপুরের পার্বতীপুরে রামচন্দ্রপুর ও পশ্চিম ঢাকুলার দুই গ্রামের প্রায় চার সহ¯্রাধিক হিন্দুধর্মালম্বীদের মৃতদেহ দাহনের জন্য শ্মশান ঘাটের উদ্বোধন করলেন এক মুক্তিযোদ্ধা। গতকাল রোববার বেলা ১২টায় উপজেলার হাবড়া ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর ঢাকুলা গ্রামের যমুনা নদীর তীরে বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী যুক্ত বাবু রেবতী চন্দ্র রায়ের দান কৃত ১০শতক জায়গায় দু’ গ্রামের চার সহ¯্রাধিক মানুষের মৃতদেহ দাহনের জন্য এ শ্মশান ঘাটের উদ্বোধন করা হয়। এতে এলাকার পরিবারদের মধ্যে আনন্দের ঢল নেমেছে। এসময় বেল গাছের চারা রোপন করেন জমিদাতা শ্রী যুক্ত বাবু রেবতী চন্দ্র রায়। এসময় উপস্থিত ছিলেন অত্র এলাকার শ্মশান ঘাট কমিটির সভাপতি শ্রী কমল চন্দ্র রায় (মাস্টার), সাধারণ সম্পাদক শ্রী অমৃত রায়সহ কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। উক্ত দুই গ্রামের চার হাজার লোকের বসবাস করায় তারা হিন্দু ধর্মালম্বীদের লাশ দাহ করার যায়গা না থাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ লাশ অনেক কষ্টে যমুনা নদীর পাড়ে দাহ করে আসছিলো। এ লাশদাহের বিড়ম্বনা দেখে রামচন্দ্রপুর গ্রামের পঞ্চানন রায়ের পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী যুক্ত বাবু শ্মশান ঘাটের নামে ১০শতাংশ জমি এককালীন দান করেন। উক্ত শ্মশান ঘাটটি সুশৃঙ্খল ভাবে হিন্দু পরিবারের লাশ দাহ করতে পারে সে জন্য ওই ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আনিছুজ্জামান আনিছ এডিপি হতে বরাদ্দ প্রদান করেন বলে তিনি জানান। আর দু’ গ্রামের হিন্দু পরিবারের লাশ দাহ করার কোন সমস্যা হবে না বলে মনে করছেন ভুক্তভোগীরা।

Print Friendly, PDF & Email

Comments are closed.