ভোটের উত্তাপে পুড়ছে ধামইরহাট উপজেলা

ধামইরহাট নওগাঁ প্রতিনিধি:  জাতীয় নির্বাচনের পর পরই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। পাঁচ দফায় হতে যাওয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শেষ হয়েছে ১০ মার্চ। ২য় ধাপে ৮৭ টি উপজেলায় অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আগামী ১৮ই মার্চ। আর মাত্র ৪ দিন পর সোমবার দ্বিতীয় ধাপে নওগাঁ জেলার ধামইরহাট উপজেলার বহুল প্রত্যাশিত উৎসব মুখর পরিবেশে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই প্রার্থীদের প্রচারনায় ও গনসংযোগে উত্যপ্ত পুরো উপজেলা। ধামইরহাট উপজেলার সহকারী রিটার্ণিং অফিসার ও ইউএনও গনপতি রায় জানান, ধামইরহাট উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন মোট ৫ জন প্রার্থী, আ’লীগ থেকেনৌকা প্রতীকে আজাহার আলী, জাতীয় পার্টি থেকে দলীয় প্রতীক লাঙ্গল মার্কা নিয়ে দেওয়ান আব্দুল হান্নান, ও স্বতন্ত্র পদে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে আ.ন.ম আফজাল হোসেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হানজালা আনারস প্রতীকে ও নতুন মুখ হিসেবে এলাকায় পরিচিত আয়েন উদ্দিন (ডালিম)ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।
উপজেলার আনাচে-কানাচে চেয়ারম্যান পুরুষ-মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের নির্বাচনী পোস্টারে ছেয়ে গেছে ধামইরহাটের হাটবাজার।
বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মোঃ আখরাজুল ইসলাম স্বতন্ত্র হিসেবে চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার লক্ষ্যে মনোনয়ন উত্তোলন করলেও পরবর্তীতে দলীয় হাইকমান্ডের নির্দেশে তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন। যদিও বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেনি। তবে স্বতন্ত্র নামধারী অনেক বিএনপির নেতাকর্মী ধামইরহাট তথা দেশের বিভিন্ন উপজেলায় তাদের অস্তিত্ব জানান দিতে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছেন। প্রার্থী হওয়ায় বিএনপি থেকে বহিস্কৃত হয়েছেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহিনা খাতুন।

এ উপজেলায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী মোঃ আজাহার আলী দিনরাত ঘুম-নির্ঘুম প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন জয়ের মালা পড়ার লক্ষে,নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা ভোটারদের দারে দারে ঘুরছেন, বলছেন রাস্তাঘাট-বিদ্যুৎসহ উন্নয়নের ফিরিস্তি। অপরদিকে স্বতন্ত্র ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আ.ন.ম আফজাল হোসেন, হানজালা ভোটের মাঠে ছাড় দিতে নারাজ। জয় নিয়েই ঘরে ফিরাই তাদের লক্ষ্য বলে তারা জানায়।

তবে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পর্যায়ের সাধারণ ভোটারদের সাথে কথাবলে জানা গেছে, এই উপজেলায় আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী আজাহার আলীর সাথে স্বতন্ত্র ও আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আ.ন.ম আফজাল হোসেনের প্রতিদ্বন্দীতা হবে বাঘে-সিংহে লড়াইয়ের মত। তবে অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী হানজালাকে ছোট করে দেখছেন না সাধারণ ভোটাররা।

আ’লীগের প্রার্থী আজাহার আলী বলেন, সারা দেশে নৌকা মার্কার গণজোয়ার উঠেছে, দেশের চলমান উন্নয়নকে অব্যাহত রাখতে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক নৌকা মার্কা বিপুল ভোটে জয়ী হবে ইনশাআল্লাহ।

এ বিষয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আ.ন.ম আফজাল হোসেন বলেন, “নির্বাচনী পরিবেশ সুন্দর আছে এবং তা বজায় রাখতে পুলিশ নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালন করছে, আমি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী, বিজ্ঞান ভিত্তিক কৃষি বান্ধব উপজেলা গড়তে আমি নির্বাচিত হলে ধামইরহাট উপজেলাকে ঢেলে সাজাবার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি, আর সেই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন দেখতে জনগন আমাকেই বেছে নেবে।”

তবে ভোটাররা ঠিকমত কেন্দ্রে উপস্থিত হতে পারবেন কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী হানজালা, “তিনি মনে করেন ভোটাররা কেন্দ্রে উপস্থিত হতে পারলেই স্বরনকালের শ্রেষ্ঠ ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে আমাকে নির্বাচিত করবে।”
উল্লেখ্য এ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন পুরুষ ও মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান পদে ৪ জন মহিলা প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।