গাইবান্ধার ৫টি উপজেলায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ-ভোটারের উপস্থিতি কম

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:  পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে গাইবান্ধার পাঁচটি উপজেলায় সোমবার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহন চলছে। সকাল ৮টায় নির্ধারিত সময়ে সকল ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। সকাল ১০টার পর থেকে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা বৃদ্ধি পেতে থাকে। সদর উপজেলার গাইবান্ধা সরকারি কলেজ ভোট কেন্দ্রে ভোট প্রদানের পর ভোটার শ্রাবন্তী রানী (৪০) জানান, ভোটারদের কোন লাইন নাই। খুব সহজেই মার্কা খুঁজে ভোট দিতে পারছি। পছন্দমতো প্রার্থী বাছাই করে পছন্দের মার্কায় ভোট প্রদান করেছি।
একই কেন্দ্রে ভোট প্রদানের পর মো. আব্দুল জলিল প্রামানিক (৬২) নামে আরেক ভোটার জানান, প্রার্থীদের প্রতীক চিনতে কোন সমস্যা হয়নি। সুন্দর পরিবেশ ও স্বাধীনভাবে ভোট প্রদান করেছি। গাইবান্ধা সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী নৌকা প্রতীকের পিয়ারুল ইসলাম পশ্চিমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের শাহ সারওয়ার কবীর উত্তরপাড়া ১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকালে ভোট প্রদান করেছেন।
এদিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান জানান, এসব উপজেলায় মোট ভোটার ১০ লাখ ৬০ হাজার ২৭৪ জন। এরমধ্যে নারী ভোটার ৫ লাখ ৪২ হাজার ৫১৮ জন এবং পুরুষ ভোটার ৫ লাখ ১৭ হাজার ৭৫৬ জন। ৩৫৬টি ভোট কেন্দ্রের ২ হাজার ৫৮১টি ভোট কক্ষে ভোটাররা তাদের ভোটারধিকার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রয়োগ করছেন। গাইবান্ধার পাঁচ উপজেলায় ৩৫৬ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ২ হাজার ৫৮১ জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও ৫ হাজার ১৬২ জন পোলিং অফিসার ভোট গ্রহণের দায়িত্বে রয়েছেন।
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ ধরে রাখতে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে সংশি¬ষ্ট কেন্দ্রগুলোতে। সব প্রস্তুতি স¤পন্ন করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র ও চরাঞ্চলের কেন্দ্রগুলোর জন্য বিশেষ নজরদারি রাখা হয়েছে। মাঠে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য ছাড়াও ২৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন। সকাল ১১টা পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণের জন্য কেন্দ্রগুলোতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার রয়েছে।
উলে¬খ্য, গাইবান্ধা সদর উপজেলাসহ পলাশবাড়ী, সাদুল¬াপুর, ফুলছড়ি ও সাঘাটা এই পাঁচটি উপজেলায় ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। এ উপজেলাগুলোতে চেয়ারম্যান পদে ১৯ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ৩৬ জন ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান হিসেবে ২৬ জন বৈধ প্রার্থী রয়েছেন। এরমধ্যে গাইবান্ধা সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান ৫ জন, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৬ জন, পলাশবাড়ী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান ৯ জন, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৬ জন, সাদুল¬াপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান ৭ জন, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৩ জন, ফুলছড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান ৬ জন, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৪ জন এবং সাঘাটা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান ৯ জন, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান ৭ জনসহ ৮১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।