খানসামা উপজেলা নির্বাচনে ভগ্নিপতির নিকট শ্যালকের পরাজয়


মো. মিজানুর রহমান (মিজান), চিরিরবন্দর, (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে গত ১৮ মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন ৩ জন। এর মধ্যে ছিলেন ভগ্নিপতির আর শ্যালক। একজন দলীয় মনোনয়ন পেলে অন্য দুই জন হন বঞ্চিত। কিন্তু ভোটের মাঠে প্রার্থী হিসেবে ৩ জনই ছিলেন সক্রিয়। ভগ্নিপতি বনাম শ্যালক। উপজেলায় মোটরসাইকেল, নৌকা আর আনারস প্রতীকের লড়াই নিয়ে ভোটের মাঠ ছিল সরগমন। তারা ভোটের লড়াইয়ে টিকে থাকতে একে অপরে কোমর বেঁধে মাঠে নামেন। এ উপজেলার নির্বাচন নিয়ে সবার ছিল বাড়তি কৌতুহল। আর নানা আলোচনা-সমালোচনা। ভোটের লড়াইয়ে বিজয়ের মালা কে পরেন এ নিয়ে ছিল সবার প্রতীক্ষা। মো. সহিদুজ্জামান শাহ্ উপজেলা বিএনপির সভাপতি থেকে দুবার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর তিনি আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সহিদুজ্জামান শাহ্ আওয়ামী লীগের মনোনীত মো. সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন আর আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবু হাতেম প্রতদ্বন্বিতা করেন। মো. আবু হাতেম ও মো. সহিদুজ্জামান শাহ্ সম্পর্কে তারা আপন ভগ্নিপতি-শ্যালক। প্রয়াত সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আকবর আলী শাহ্ জামাই হলেন মো. আবু হাতেম ও ছেলে মো. সহিদুজ্জামান শাহ্। নির্বাচন শেষে ভোটের ফলাফলে ভগ্নিপতি আবু হাতেম হন বিজয়ী। আর শ্যালকের অবস্থান হয় তৃতীয়। নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবু হাতেম মোটরসাইকেল প্রতীকে ২৯ হাজার ৪৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন। তিনি নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ২৫ হাজার ৪ ভোট। মো. সহিদুজ্জামান শাহ্ আনারস প্রতীকে ১৭ হাজার ৯০৪ ভোট পান। #