জনগনের সমস্ত অধিকার কেরে নেয়া হয়েছে-মির্জা ফখরুল

জুনাইদ কবির ,ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: অকল্পনিয় পরিস্থিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে যা এ দেশের মানুষ কল্পনাও করতে পারেনি ,বাংলাদেশের মানুষের সমস্ত আশা আকাংক্খাকে পদদলিত করে দিয়ে গনতন্ত্রকে হরন করে মানুষর অধিকারগুলোকে কেরে নিয়ে একটা তথাকথিত নির্বাচন ডাকাতি অনুষ্ঠিত হয়েছে এর মধ্য দিয়ে জনগনের সমস্ত অধিকার কেরে নেয়া হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম অঅলমগীর আরো বলেছেন ,সরকার ভারতের সাথে ভাল সম্পর্ক দাবি করলেও দেশের হিস্যা আজো পুরন করতে পারেনি। প্রধানমন্ত্রির দাবি ভারতের সাথে সবচেেেয় ভালো সম্পর্ক।কিন্তু ভারত আমাদের দেশ থেকে সকল সুবিধা পেলেও বাংলাদেশ কি পেয়েছে।

মির্জ ফখরুল বলেন,অভিন্ন নদীর পানি সংকট আজো দুর হয়নি । বিজিবি-বিএসএফের প্রধানের বৈবঠকের প্রসঙ্গ তুলে সীমান্তে দুর্ঘটনা বা অনাকাক্খিত মৃত্যুর কথা উল্লেখ করলেও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দাবি করে বলেছেন ,সীমান্তে বাংলাদেশিদের গুলি করে হত্যা কারা হচ্ছে ।দেশে আইন আছে।এই হত্যাকান্ড বন্ধ করতে হবে ।

রুহিয়া থানা বিএনপির সভাপতি আনছারুলের সভাপতিত্বে এ কর্মী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মী সভায় মির্জা ফখরুল আরো বলেছেন ,বর্তমানে অবৈধ সংসদ,জনগনের ভোট নির্বাচিত হয়নি ,জনগনের ভোট ডাকাতি করেছে ।দুর্ভাগ্য আমাদের যে আমরা জনগনের অধিকার রক্ষা করতে পারিনি।

এ সরকার দেশের সকর রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহার করে ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে রেখেছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির এই মহাসচিব। এবারের বাজেটের অঅয়ের বেশিরভাগ অর্থ যাচ্ছে সরকারের কর্মকর্তা –কর্মচারিদের কাছে।তাদের গাড়ি ,অনুদানসহ সুযোগ সুবিধা বারানো হয়েছে ।নির্বাচনে আগে তাদের বিশেষ অনুদান দেয়া হয়েছে অভিযোগ করে ফখরুল বরেন ,যারা নির্বাচন পরিচালনা করবে ,বোট ডাকাতি করবে ,ভোট ডাকাতির নির্দেশ দেবে । এজন্য অঅওয়ামী লীগকে ভবিষ্যত প্রজন্মরে কাছে জবাব দিহিতা করতে হবে।

কর্মীসভায় জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান ,সাধারন সম্পাদক ফয়সাল আমীনসহ বিএনপি নেতাকর্মীরা উপস্তিত ছিলেন। #