বিরামপুরে পুলিশের সহযোগিতায় বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেল এক স্কুলছাত্রী

অলিউর রহমান মেরাজ দিনাজপুর প্রধিনিধি:
দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় পান্না আকতার (১২) নামে পঞ্চম শ্রেণির এক কিশোরীর বাল্যবিয়ে পণ্ড করে দিয়েছে পুলিশ। ওই কিশোরী জানায়, সে এবার চৌঠা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে সমাপনী পরীক্ষায় ৩.২০ গ্রেড পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। সোমবার বিকেলে উপজেলার বিনাইল ইউনিয়নের চৌঠা হঠাৎপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

পান্না আকতার ওই গ্রামের মান্নান হোসেনের মেয়ে। বিরামপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান মনির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিরামপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান মনির জানান, সোমবার বিকেলে বিনাইল ইউনিয়নে চৌঠা হঠাৎপাড়া গ্রামে মান্নান হোসেনের মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী পান্না আকতার (১২) নামে এক কিশোরীর বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন সংবাদে সেখানে অভিযান চালানো হয়। পরে পুলিশ গিয়ে ওই কিশোরীর বাল্যবিয়ের আয়োজনের প্যাণ্ডেলটি এলাকাবাসীর সহায়তায় গুড়িয়ে দেন। তবে পুলিশ যাওয়ার আগেই মেয়ের বাবা ও মা পালিয়ে যায়।

বিরামপুর ইদগাঁহ মাঠ এলাকায় সিদ্দিক মহুরীর ছেলে মিলন হোসেনের সঙ্গে ওই কিশোরীর বিয়ে হবার কথা ছিল বলেও ওসি জানান।

তবে এ বিষয়ে স্থানীয় বিনাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইসলামকে বারবার মোবাইল ফোন করলেও তিনি ফোন ধরেননি।