গাইবান্ধা-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জরিদুল হক গাইবান্ধার সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়


আতোয়ার রহমান গাইবান্ধা থেকে : গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ি-সাদুল্যাপুর) আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং জেলা পরিষদের নির্বাচিত সদস্য অ্যাড. মো. জরিদুল হক শনিবার গাইবান্ধা প্রেসক্লাবে জেলার প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন। পলাশবাড়ি-সাদুল্যাপুর উপজেলাবাসির পক্ষ থেকে এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

মতবিনিময়কালে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে এবং দেশের অব্যাহত উন্নয়ন ও পলাশবাড়ি-সাদুল্যাপুর উপজেলার সার্বিক উন্নয়ন এবং জনকল্যাণে নিবেদিত থেকে কাজ করার লক্ষ্য নিয়েই নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে চান। এছাড়া দারিদ্র, দুর্নীতি ও মাদক মুক্ত দেশ গঠনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় প্রধান দেশের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে গাইবান্ধা-৩ (পলাশবাড়ি-সাদুল্যাপুর) আসনে অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে নির্বাচন করতে ইচ্ছুক।

উলেখ্য, তিনি পলাশবাড়ি উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের পর পর ৩ বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি পলাশবাড়ি হরিণাবাড়ি কলেজের সভাপতি, বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরামের সাবেক সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি ২০০৯ সালে ৩য় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে অল্প ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন এবং ২০১৪ সালে ৪র্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হিসেবে অংশ গ্রহণ করে জয়ের সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও তৃণমূলের ভোটে বিজয়ী না হওয়ায় দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি আকণ্ঠ শ্রদ্ধা রেখে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। শিক্ষাগত জীবনে তিনি এম.এ.এলএলবি অর্জন করেন।

উলেখ্য, রাজনীতিবিদ ও বিশিষ্ট সমাজসেবক অ্যাড. জরিদুল হক পলাশবাড়ি উপজেলার ভেলাকোপা গ্রামের মৃত মোফাজ্জল হোসেন ও মৃত জমিলা খাতুনের সন্তান। তিনি ছাত্র জীবন থেকেই ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন এবং সেই থেকেই আন্তরিকতার সাথে এই দলের নীতি আদর্শকে লালন করে চলেছেন। শুধু তাই নয়, জরিদুল হক রাজনৈতিক জীবনে গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক প্রতিষ্ঠা সদস্য, পলাশবাড়ি উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সহ-সভাপতি, পলাশবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য, হরিনাথপুর ইউনিয়নের একাধিকবার সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

মতবিনিময়কালে তার সাথে উপস্থিত ছিলেন সাদুল্যাপুর উপজেলার জাহাঙ্গীর আলম, দেবাশীষ পোদ্দার, পলাশবাড়ি উপজেলার তাহাজ্জাদুর রহমান, কামাল হোসেন, গাওসুল হক, আবু আহম্মেদ জোবায়দুর, রেজাউল আলম, মশিউর রহমান শাহীন, আনোয়ার হোসেন মিন্টু, আহসানুল কবীর বিটু প্রমুখ।