বগুড়ায় ইজতেমা নিয়ে তাবলীগ জামায়াতের দুই পক্ষের মুখোমুখি


অনলাইন ডেস্ক : বগুড়ায় তাবলীগ জামায়াতের জেলা ইজতেমার আয়োজনকে ঘিরে সংগঠনটির দুটি পক্ষ মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার থেকে শহরের ঝোপগাড়ী এলাকায় তিন দিনের জেলা ইজতেমার আয়োজন করেছে তাবলীগ জামায়াতের একটি অংশ।

তাদেরকে সাদপন্থি আখ্যা দিয়ে এই ইজতেমা আয়োজন বন্ধের দাবিতে জেলা প্রশাসককে বুধবার স্মারকলিপি দিয়েছে তাবলীগ জামায়াতের আরেকটি অংশ। অন্যদিকে, বুধবারও ঝোপগাড়ী এলাকায় ইজতেমার আয়োজনের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত দেখা গেছে সাদপন্থিদের। বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর থেকে তিন দিনের এই ইজতেমা শুরু হবার কথা।

‘সম্মিলিত ওলামায়ে কেরাম, তওহিদি জনতা ও তাবলীগের আলমিশুরা বগুড়া’র ব্যানারে তাবলীগ জামায়াতের একটি অংশ সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দিয়েছে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, গত জানুয়ারিতে টঙ্গীর ইজমেতা ময়দানে দু’দফায় তাবলীগ জামায়াতের শুরায়ে নেজামি এবং সাদপন্থিদের পৃথক বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং পরের বছরও দুই পক্ষের ইজতেমার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে দেশের কোথাও আর ইজতেমা করার সুযোগ নেই। কিন্তু কোরআন-হাদীসের অপব্যাখ্যাকারী সাদপন্থিরা ঝোপগাড়ি মারকাজ মসজিদ এলাকায় জেলা ইজতেমার আয়োজন করেছে। এই ইজতেমার মধ্য দিয়ে মূলত সাদপন্থিরা ইসলাম নিয়ে ভ্রান্ত আকিদা প্রচার করবে, এতে বিভ্রান্ত হবেন সাধারণ মুসলমানরা। তাই এই ইজতেমা বন্ধের দাবি জানানো হয় স্মারকলিপিতে।

স্মারকলিপি দেয়া শেষে তাবলীগ জামায়াতের শুরায়ে নেজামিপন্থিরা জেলা প্রশাসক চত্ত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। বৃহস্পতিবার ফজর নামাজের আগে ঝোপগাড়ীর জেলা ইজতেমার আয়োজন বন্ধ করা না হলে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি জানান তাবলীগের এই পক্ষের নেতারা। #