পোড়া ইঞ্জিন মেরামত করল পার্বতীপুরের রেলওয়ে কারখানা : সাশ্রয় ৩৩ কোটি টাকা


স্টাফ রিপোর্টার : পুড়ে গিয়ে সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যাওয়া একটি রেলওয়ে ইঞ্জিন (লোকোমোটিভ) সচল করা হয়েছে। দেশে প্রথমবারের মতো এ ধরনের একটি অসম্ভব কাজকে সম্ভব করেছে পার্বতীপুরের কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানা। ফলে ৩০ কোটি টাকা সাশ্রয় হয়েছে। সচল ইঞ্জিনটি বুধবার রেল বহরে যুক্ত হয়। সৈয়দপুর রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ৭ অক্টোবর দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোটেম কোম্পানিতে তৈরি ২৯৩৩ নম্বর এ ইঞ্জিনটি দুর্ঘটনায় পড়ে। এটি ঢাকা-সিলেট রেলরুটে পারাবত আন্তঃনগর ট্রেনটিকে টেনে নিয়ে যাচ্ছিল।

এ সময় হবিগঞ্জের মাধবপুর নোয়াপাড়া স্টেশনে ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয়। দুর্ঘটনায় ইঞ্জিনটির নিচের অংশের জ্বালানি ট্যাংকে আগুন ধরে যায়। ফলে তা সম্পূর্ণ বিকল হয়ে পড়ে। পুড়ে যাওয়া ইঞ্জিনটি নেয়া হয় চট্টগ্রামের পাহাড়তলী ডিজেল শপে। ইঞ্জিনটি সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় তা কোনোভাবে মেরামত সম্ভব হচ্ছিল না। পরে ২০১৯ সালের ১৫ মে ইঞ্জিনটি মেরামতের জন্য পার্বতীপুরে পাঠানো হয়। সেখানে ৮ মাস অক্লান্ত পরিশ্রম করে শ্রমিক-প্রকৌশলীরা ইঞ্জিনটি সচল করে। এরই মধ্যে ইঞ্জিনটি রেলপথে পরীক্ষামূলক চলাচল সম্পন্ন করেছে। দেশে এই প্রথম একটি অচল লোকোমোটিভ সচল করা সম্ভব হল।

সূত্র জানায়, ইঞ্জিনটি সচল করতে ব্যয় হয়েছে ৩ কোটি টাকা। অথচ একটি নতুন মিটারগেজ ইঞ্জিন আমদানিতে খরচ হতো ৩৩ কোটি টাকা। ৩০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় করেছে সংশ্লিষ্টরা।