দাদন ব্যবসার দেড় কোটি টাকার চেক উদ্ধার পার্বতীপুরে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা


শাহাজুল ইসলাম : দিনাজপুরের পার্বতীপুরে একাধিক বিদেশ ফেরতকে মোটা টাকার চুক্তির বিনিময়ে আশ্রয় দেয়ার অভিযোগে নাজমা খাতুন (৪০) নামে এক নারীকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।
আজ মঙ্গলবার বিকেলে পার্বতীপুর বাস টার্মিনালের একটি দোকান থেকে আটক করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যলয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। এসময় তার ব্যাগ থেকে বিভিন্ন ব্যাংকের চেকের পাতা, অবসর ভাতার বই, ব্যাংকের ড্রাফ্ট বই, সোনালী ব্যাংকের গোল ও ত্রিকোনাকৃতির দুটি সিল, উপজেলার চন্ডিপুরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের সিলসহ ষ্ট্যাম্প উদ্ধার করা হয়। লিখিত ও ব্লাংক চেকের আনুমানিক মূল্য প্রায় দেড় কোটি টাকা বলে জানা গেছে।

জানা যায়, উপজেলার তাজনগর ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের নুর ইসলামের স্ত্রী নাজমা খতুন (৪০) ও উত্তর হরিরামপুর গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে সাখাওয়াত হোসেন (৩৮) দীর্ঘদিন ধরে কম্পিউটার বিক্রির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আড়ালে দাদন ব্যবসা চালিয়ে আসছিলো। সম্প্রতি দেশব্যাপি বিদেশ ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হলেও নাজমা ও তার সহযোগী সাখাওয়াত মোটা টাকার চুক্তির বিনিময়ে তার বাড়িতে আশ্রয় দিয়ে আসছিলো। তবে, কয়েকদিন আগে অভিযানের ঘটনা জানতে পেরে পালিয়ে যায় তারা। বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শাহনাজ মিথুন মুন্নী তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় সাখাওয়াত হোসেন পালিয়ে গেলেও তার সহযোগী নাজমাকে আটকের পর ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। সেই সাথে উদ্ধার হওয়া চেকের পাতাসহ অন্যান্য জিনিসপত্র প্রকৃত মালিকের কাছে ফেরত দেয়া হবে বলে জানান ইউএনও।

অপরদিকে, হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে যত্রতত্র ঘোরাফেরা করার অভিযোগে মনমথপুর ইউনিয়নের দাগলাগঞ্জের নরেন্দ্র রায়কে (৩০) ২০হাজার ও একই ইউনিয়নের দেউল গ্রামের বিমল চন্দ্র রায়কে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। #

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *