পার্বতীপুরে সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না, হাট-বাজারে মানুষের ঢল


সোহেল সানী,
দিনাজপুরের পার্বতীপুরে হাট-বাজারে মানুষের ঢল ও দোকানপাট খুলে দেদারচ্ছে চলছে বিকিনিকি। প্রকাশ্যে চলছে মানুষের অবাদ বিচরন। হাট-বাজারে এক চায়ের কাপে একাধিক ব্যক্তি চা খাচ্ছে। গোপনে ও প্রকাশ্যে চলছে চায়ের দোকানে আড্ডাবাজির সমাগম। এর ফলে বাড়ছে করোনা সংক্রমনের ঝুকি। তবে, প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে করোনা ঠেকানোর। প্রায় প্রতিদিনই ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানসহ পুলিশের কঠোর অভিযান। তারপরও পুরোপুরি করা যাচ্ছে না নিয়ন্ত্রণ।

পার্বতীপুর শহরের নতুন বাজারে শতশত লোকের সমাগম ঘটতে থাকে, পুরাতন বাজার, টার্মিনাল মোড়, ভবানীপুর বাজার, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি বাজার, মধ্যপাড়া পাথর খনি বাজার, আমবাড়ী বাজার, ভবেরবাজার, চৌপতি বাজার, খয়েরপুকুরহাটসহ উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে রাস্তার মোড়ে মোড়ে মানুষের অবাদ চলাফেরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফ্যানপেজ ‘হ্যালো পার্বতীপুর’ এ্যাডমিন সিরাজুল ইসলাম ইমু জানান, নতুন বাজারে কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা করা হচ্ছে না। গত রবিবার সাপ্তাহিক হাটে সরকারি নিষেজ্ঞা মানা হয়নি। সবকিছু ছিলো ওপেন। একজনের চায়ের কাপে অসংখ্য মানুষ চা খাচ্ছে প্রকাশ্যে। অপরদিকে, আমবাড়ী বাজার অনেক দোকানপাট খুলে কেনাবেচা করা কথা জানান, স্থানীয় বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন।

খয়েরপুকুরহাট এলাকার আহসান হাবিব জানান, খয়েরপুরহাট বাজারে কারো কারো দোকান খোলা রাখা হচ্ছে। মাস্কবিহীন ঘুরাফেরা করছে অসচেতনরা। #

চার রাস্তা মোড় বাসটার্মিনাল এলাকার ডাঃ রুকুনুজ্জামান বাবুল বলেন, বাজারে যৌথবাহিনীর উপস্থিতি টের পেলে কতিপয় লোক মাস্ক ব্যবহার করেন, তারা চলে যাওয়ার পরে তা আবার খুলে রাখেন। ডিপোর সামনে লেগেই থাকে জনসমাগম। তবে, সচেতন নাগরিকদের দাবি, বাজারগুলোতে প্রয়োজনীয় স্থানীয় পুলিশ টহলে ব্যবস্থার।