লকডাউনে সুযোগ কাজে লাগলো না, চার চোরের


শফিক ইসলাম : পার্বতীপুরে ভবের বাজার করোনা আতংকে বন্ধ থাকা শাহ হোটেলে পিছনে ছাদের টিন খুলে হোটেলে ঢুকে নগদ অর্থ না পেয়ে রান্নার কারার সরঞ্জাম চুরি করতে থাকা অবস্থা বাহির থেকে শব্দ পেয়ে সন্দেহ হলে দরজা খুলে হোটেল মালিক ভানু শাহ ভিতরে ঢুকে গুছিয়ে রাখা জিনিস পত্র ছড়ানো ছিটানো অবস্থা দেখে ভিত হয়ে পড়ে। ততক্ষনে চোর বাহিরে বের হয়ে আসতে সক্ষম হয়। ভানু দ্রুত হোটেলে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে চোরের পরিচয় নিশ্চিত করে। যান বাহন বন্ধ থাকায় চোর পালিয়ে যেতে ব্যর্থ হয়।
করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষ করতে আসা সাংবাদিক লিমন হায়দার ধরা পড়া চোরদের কাছে চুরির কারন জানতে চাইলে চুরির কথা অস্বীকার করে তারা বলে পেছনে হিরোইন খেতে বসে ছিল তারা।
সহজ সরল তাদের স্বীকারোক্তি শুনে অবাক হলাম যেন চুরিটা অপরাধ নেশা নয়।
চুরির দৃশ্য চার চোরকে দেখানোর পর যে যাকে পারে নিজেরা গালাগালি করে একে অপরের গায়ে দোষ দিতে থাকে।
বা দিক থেকে ১. সিরাজ(৩৮) পিতা-আ: রশিদ, ২. রশিদুল (৩১) পিতা- ফারুক, ৩. রেজাউল (৩২), পিতা- আ: মমিন ৪. বাবু শেখ (৩২) পিতা- আকবর আলী প্রত্যেকে তাদের নিজ নাম বলে তাদের সবার ঠিকানা পাবর্তীপুর ধুপি পাড়া।
৪চোর কে পরে হোটেল মালিক ভোলা নাথ শাহের ছেলে ভানু শাহ থানায় সোপর্দ করে আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানায়। #