একমাস পর আবারো ভারত-বাংলাদেশের পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল শুরু


অনলাইন রিপোর্ট : করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মার্চের ২৬ তারিখ থেকে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে মালবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এক মাস বন্ধ থাকার পর আবারও চালু হয়েছে।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৩টায় রেলের পশ্চিমাঞ্চলের রাজশাহীর রহনপুর বর্ডার দিয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি মালবাহী ওয়াগন মালামাল আনতে ভারতে প্রবেশ করেছে বলে সময় সংবাদকে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক(অপারেশন) মিয়া জাহান। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের সাথে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (ডিআরএম) আসাদুল হক জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে ভারতের কাস্টমস ও ইমিগ্রেশন বন্ধ হয়ে পড়ে ফলে মালবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয় তারা। এক মাস পর মালবাহী ট্রেন চলাচল আবারো শুরু হয়েছে। সাধারণত ভারত থেকে বাংলাদেশ মালবাহী ট্রেনে নির্মাণ সামগ্রী আমদানি করা হয়। পাথর, তেল, পল্টি খাবারও নিয়ে আসা হয়।

মিয়া জাহান বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে যাত্রী পরিবহন বন্ধ থাকায় বিপুল পরিমাণ অর্থ লোকসানের মুখে পড়েছে রেলওয়ে। এই সময় কমেও গেছে পণ্যপরিবহনও ফলে এই বছর রেলের লোকসানের পরিমাণ বাড়বে। তবে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে মালবাহী ট্রেন চালু হওয়ায় করোনাকালীন ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

মিয়া জাহান বলেন, একবার একটি ওয়াগন ভারত থেকে ফিরে আসলে বাংলাদেশের আয় হয় ১২-১৫ লাখ টাকা। সেই হিসেবে গত একমাসে লস হয়েছে প্রায় ৫ কোটি টাকা। করোনার মধ্যে দুই দেশের সাথে ওয়াগন চালুর খবরটি কিছুটা স্বস্তির কেননা এর মধ্য দিয়ে আপদকালীন ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

ভারত সীমান্তের গেদে বর্ডার দিয়ে এবং বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চলের দর্শনা বর্ডার দিয়েও এই মালবাহী ওয়াগন চলাচল করে। #