নবাবগঞ্জে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত


নবাবগঞ্জ দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সংগ্রাম,গৌরব ও সাফল্যের ৭১ বছর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা খালিশপুর ডাংগী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এই প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও দোয়া খায়ের অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্থায়ীকমিটির সদস্য এমপি শিবলী সাদিক।

সভায় প্রধান অতিথি বলেন, ‘বাঙালি জাতির প্রতিটি মহৎ, শুভ ও কল্যাণকর অর্জনে আওয়ামী লীগের ভূমিকা রয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের নেতৃত্বে আমরা আজ আত্মমর্যাদাশীল দেশ হিসেবে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘ভবিষ্যতেও আওয়ামী লীগ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত, সুখী-সমৃদ্ধ, উন্নত ও আধুনিক সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করবে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে প্রিয় বাংলাদেশ।

তিনি বলেন,আমাদের দুর্ভাগ্য জাতির পিতা যখন রাষ্ট্রপরিচালনার দায়িত্ব পেলেন, যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশটিকে যখন এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিক সেসময় সেই আরেক মীরজাফর মুস্তাক এবং জিয়ার চক্রান্তে তাঁকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত হয়ে গেল।

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এমপি শিবলী সাদিক বলেন, আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠার পর থেকেই ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে সব ধরনের আন্দোলনে কাজ করে গেছে। ১৭৫৭ সালে ২৩ শে জুন পলাশীর আম্রকাননে সিরাজউদ্দৌলা ইস্ট ইন্ডিয়া কম্পানির কাছে যুদ্ধে হেরে যান। সেখানে মীর জাফর আলী খান বেঈমানি করেছিল, তার ফলে কিন্তু ওই পতন ঘটে। অর্থাৎ তখন সিরাজউদ্দৌলা ছিলেন বাংলা উড়িষ্যাসহ এই অঞ্চলের শাসক। স্বাধীনতার সূর্য অস্তমিত হয়েছিল পলাশীর যুদ্ধে আম্রকাননে। আর ২৩শে জুন প্রতিষ্ঠা লাভ করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আওয়ামী লীগ। সেই আওয়ামী লীগ আবার সেই সূর্য উদয় করে। আওয়ামী লীগের সংগঠন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জন করে।

এমপি বলেন, প্রতিষ্ঠার জন্মলগ্ন থেকেই আওয়ামী লীগ মানবতার সেবা করে যাচ্ছে। এদেশের জনগণের সেবা করে যাচ্ছে। এদেশের শোষিত-বঞ্চিত মানুষ, এদেশের কৃষক, শ্রমিক, তাতি, কামার-কুমারসহ অগণিত মানুষের কথাই বলেছে এবং তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন করেছে। এই সংগ্রামের পথ বেয়ে আওয়ামী লীগের কত নেতাকর্মী জীবন দিয়েছেন, কত মানুষ আক্রান্ত হয়েছে, সেইসব মানুষের ত্যাগ-তিতিক্ষার জন্যই আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,সহ সভাপতি ডাঃ মোশারফ হোসেন,সাদেকুল ইসলাম, মোজাম্মেল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান মানিক, হাফিজুর ইসলাম, সানোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক, সায়েম সবুজ,শাহ আলম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোচ্ছাঃ পারুল বেগম, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দিলীপ কুমার ঘোষ,স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আবুল বাশার সবুজ, ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান সবুজ,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান জনি,সহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।