নড়াইলে কুপিয়ে মাতুব্বরের হাত বিচ্ছিন্ন করেছে দুর্বৃত্তরা

নড়াইল প্রতিনিধি :
পূর্বশত্রুতা ও আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গ্রাম্য মাতুব্বর জলিল মোল্যার (৪৫) ডান হাত বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে একদল দূর্বৃত্ত। গত সোমবার লোহাগড়া পৌর এলাকার খলিশাখালী গ্রামে এ নৃশংস সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। গ্রামবাসীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে লোহাগড়া হাসপাতাল নিয়ে আসে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে যশোরের একটি বেসরকারী পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, লোহাগড়া পৌরসভার খলিশাখালী গ্রামে পূর্বশত্রুতা ও আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে জলিল মোল্যা সমর্থিত লোকজনের সঙ্গে একই গ্রামের জহুর কাজী সমর্থিত লোকজনদের মধ্যে দ্বন্ধ-সংঘাত চলছিল। এরই জের ধরে সোমবার সকালে জলিল মোল্যা বাড়ি থেকে বের হয়ে মাঠে যাওয়ার পথে ওই গ্রামের মাদ্রাসার পূর্ব পাশে পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা জহুর কাজী সমর্থিত মশিয়ার, লাভলু ,সোহেল ,ফয়সাল তালুকদার, আমিনুর, সজিব, ইমন, আলম, আরমানসহ একদল দূর্বৃত্ত দেশীয় অস্ত্র ছ্যানদা, রামদা, চাপাতি নিয়ে জলিলের গতি পথরোধ করে। দূর্বৃত্তরা জলিলকে এলোপাথাড়ি ভাবে কুপিয়ে জখম করে। ধারালো অস্ত্রের কোপে জলিলের ডান হাতের কবজার উপর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বাম পা ও প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। শরীরে অসংখ্য ধারালো অস্ত্রের কোপ। গুরুতর আহত অবস্থায় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে প্রথমে লোহাগড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে যশোরের একটি বেসরকারী পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে সূত্র জানায়।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, ওই ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের আটকের চেষ্টাও চলছে বলে তিনি জানান। #