১৩২ দিন পর মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনির ৮ শত শ্রমিকের কাজে যোগদান


শাহাজুল ইসলাম প্রতিবেদক :
দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলায় দেশের একমাত্র কঠিন শিলা খনি প্রকল্প ‘মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কোম্পানী লিঃ’ মহামারি করোনার বিস্তার রোধে গত ২৬ মার্চ লক ডাউন ঘোষনা করে উৎপাদন কাজ বন্ধ করে। এতে খনিতে ৩ সিফটে কর্মরত প্রায় ১ হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়ে। দীর্ঘ ৪ মাস কর্মহীন থাকা শ্রমিকরা বেতন বাতার দাবীতে দফায় দফায় আন্দোলন করে। শেষ পর্যন্ত স্থানীয় সংসদ সদস্য, জনপ্রতিনিধি ও আওয়ামীলীগ নেতাদের হস্তক্ষেপে ১৩২ দিন পর মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনির প্রায় ৮ শত শ্রমিক কাজে যোগদান করেছে।।

গত বুধবার বেলা ৩ টার দিকে শ্রমিকরা কাজে যোগদান করে। এক সপ্তহের মধ্যেই খনি থেকে পাথর উৎপাদন শুরু হবে ব‌লে কর্তৃপক্ষ আশা করছেন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষনা করলে মধ্যপাড়া খনির উৎপাদন, রক্ষনাবেক্ষণ ও পরিচালনাকারী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসি গত ২৬ মার্চ থেকে পাথর উৎপাদন বন্ধ রাখে। পরে সাধারণ ছুটি শেষে দেশের বিভিন্ন কলকারখানা চালু হলেও, বিদেশী প্রকৌশলী থাকায় মধ্যপাড়া খনির উৎপাদন বন্ধ রাখা হয়।

গত ১৫ দিন পূর্বে জিটিসি খনির উৎপাদন শুরু করার লক্ষ্যে শ্রমিকদের কাজে যোগদানের জন্য বলে। কিন্তু শ্রমিকরা ছয় দফা দাবিতে অনড় থাকে। এ অবস্থায় স্থানীয় সংসদ সদস্য সাবেক মন্ত্রী প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদিয় কমিটির সভাপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের নির্দেশে, পার্বতীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ হাফিজুল ইসলাম প্রামানিক ও আওয়ামী লীগ নেতা আমজাদ হোসেন শ্রমিকদের সাথে আলোচনা করে কাজে যোগদানে উদ্বুদ্ধ ক‌রেন। এরপর শ্রমিকরা কা‌জে যোগদা‌নের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এরই প্রেক্ষি‌তে, গতকাল শ্রমিকরা কাজে যোগদান করেন।অব্যাহত লোকসানের মুখে বন্ধ হওয়ার উপক্রম হলে, মধ্যপাড়া খনির উৎপাদন, রক্ষনাবেক্ষণ ও পরিচালনাকারী ঠিকাদারী প্রতষ্ঠান হিসেবে জার্মানিয়া ট্রেস্ট কনসোর্টিয়ামকে(জিটিসি) দায়িত্ব দেওয়া হয়। জিটিসি ২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারী থেকে খনিটি পরিচালনা করে আসছে। ##

পার্বতীপুরে নদীতে গোসল করতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক : পার্বতীপুরে ছোট যমুনা নদীতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে আজিজা খাতুন(৭) নামক এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়নের বড়হরিপুর মধ্য মেড়েয়া গ্রামের মোঃ আজিজুল ইসলামের কন্যা।

স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার সময় আজিজা গ্রামের অন্যান্য ছেলে মেয়েদের সাথে বাড়ীর পার্শ্ববর্তী ছোট যমুনা নদীতে গোসল করতে যায়। গোসল শেষে আজিজার দাদা আজিজা ও আরাফাত কে বাড়ীর কাছাকাছি রেখে জমিতে যান, পরে কাউকে কিছু না বলে আজিজা ও আরাফাত ফের গোসলের জন্য নদীতে যায়। গোসল করার এক সময় ফুফাতো ভাই আরাফাত এর সামনে আজিজা পানিতে তলিয়ে যায়। পরে শিশু আরাফাত দৌড়ে এসে গ্রামে খবর দিলে শিশুর অভিভাবক সহ প্রতিবেশীরা প্রায় ২ ঘন্টা খোঁজাখুজির পর পানির নিচ থেকে শিশুটির মৃত দেহ উদ্ধার করে। বৃহস্পতিবার রাতে দাফন কার্য্য সম্পন্ন করা হয়েছে। #