সৈয়দপুরে টানা বর্ষণে পানি বন্দি ১৫ হাজার মানুষ


জয়নাল আবেদীন হিরো নীলফামারী প্রতিনিধি : চার দিনের টানা বর্ষনে নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের প্রায় ১৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। শহরের মিস্ত্রিপাড়া, নীচুকলোনী, হাতিখানা, মাছুয়াপাড়া, কয়ানিজপাড়া, বাঁশবাড়ি ও কুন্দল ধলাগাছ,নিয়ামতপুুর,জুমআ পাড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় বাসা-বাড়িতে পানি উঠেছে। পানিতে থৈ থৈ করছে খাদ্যগুদাম, ১০০ শয্যা হাসপাতাল, বিমানবন্দর সড়ক,সৈয়দপুর প্রধান ডাকঘর সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের ক্লাস রুম ও আবাসিক এলাকায়।
পানিবন্দি কয়েকটি পরিবার নয়াটোলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে। সেখানে খাদ্য সংকটে ভুগছে তারা। জনপ্রতিনিধিরা তাদেরকে এ পর্যন্ত কোন সাহায্য সহযোগিতা না করায় পরিবারগুলো মানবেতর জীবনযাপন করছে।
সৈয়দপুর আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় এ অঞ্চলে ২০২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে। যা এ বছরে এ অঞ্চলের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত।

পানি উন্নয়ণ বোর্ড কর্তৃপক্ষ বলছে, সৈয়দপুর শহরের পাশ দিয়ে বয়ে চলা খড়খড়িয়া নদীর পানি বিপৎসীমার ৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা এ বছরের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। ফলে হুমকির মুখে পড়েছে সৈয়দপুর শহর রক্ষা বাঁধ। বাঁধ রক্ষার্থে ইতিমধ্যে দূর্বল স্থানে ১০০ জিও ব্যাগ বসানো হয়েছে।
পৌরসভার মেয়র হিসেবে দায়িত্বরত প্যানেল মেয়র জিয়াউল হক জিয়া জানান, এ শহরের ৮০ ভাগ বসতবাড়ি রেলওয়ের। এ রেলের জায়গায় অপরিকল্পিত ভাবে বাসা-বাড়ি নির্মান করায় পানি নিষ্কাষনের ড্রেনগুলো বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।