নির্মিত হচ্ছে বিশ্বের প্রথম ‘কোরআনিক ভিলেজ’


আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মালয়েশিয়ার টারাঙ্গানু প্রদেশে নির্মিত হচ্ছে বিশ্বের প্রথম ‘কোরআনিক ভিলেজ’। এর মাধ্যমে জনগণের মধ্যে কুরআনিক জ্ঞানের বিস্তার ঘটবে এবং এই প্রদেশটি একটি জ্ঞানচর্চার শহরে পরিণত হবে বলে মনে করে দেশটির সরকার।

মেগা এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে প্রায় ১৫শ মিলিয়ন রিঙ্গিত এবং প্রায় ২০ একর জায়গা জুড়ে নির্মিত হবে।

মেগা প্রকল্পটির নকশা প্রকাশ করে মালয়েশিয়ার ফেডারেল টেরিটরিমন্ত্রী আনোয়ার মুসা তার ভেরিফায়েড ফেসবুক ও টুইটারে বলেন, কোরআনিক ভিলেজ এর নকশা চূড়ান্ত করা হয়েছে। সরকার ইতোমধ্যে প্রকল্পটিতে নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছে এবং এর অর্থায়ন সরকার অনুমোদন করেছে। ২০২১ সালে এর কাজ শুরু করতে পারব ইনশাল্লাহ।

এটি বিশ্বের একমাত্র কোরআনিক ভিলেজ হতে যাচ্ছে বলে দাবি মালয়েশিয়ার। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে সেখানে থাকবে ৫ হাজার মুসল্লীর ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি নতুন মসজিদ, একটি কুরআন বিজ্ঞান ও ভবিষ্যদ্বাণীমূলক জীবনী কেন্দ্র, একটি ছাত্রাবাস এবং অনুষ্ঠান আয়োজনের স্থান, একটি বাজার এবং একটি শিল্পকলা কেন্দ্র।

কোরআনিক ভিলেজটি যথাক্রমে মালয়েশিয়া, কুয়েত, ইরাক, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ব্রুনাইয়ের জন্য উৎসর্গীকৃত বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী আনোয়ার মুসা।

সূত্র : মালয় মেইল / somoynews.tv/pages/details/244463/নির্মিত-হচ্ছে-বিশ্বের-প্রথম-‘কোরআনিক-ভিলেজ’