২’শত বছরের পুরনো কবরস্থান ভেঙ্গে ফেলায় এলাকাবাসির বিক্ষোভ ও মানববন্ধন


ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বড়গাঁ ইউনিয়নের কিসমত কেশুরবাড়ী সরকারপাড়া এলাকায় ২’শত বছরের পুরনো কুমারপুর কবরস্থান ভেঙ্গে এবং কবরগুলো মাটি দিয়ে ভরাট করে সেখানে গাছ রোপন করা হয়েছে। ওই এলাকার আব্দুল আজিজ (বর্তমানে ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স এ কর্মরত) নামে এক ব্যক্তি গোরস্থানের জমিটি তার পৈত্রিক সম্পত্তি দাবি করে গায়ের জোরে এ ঘটনা ঘটান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে স্থানীয় মুসলিম সমাজ।

এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে শুক্রবার (৬ নভেম্বর) জুম্মার নামাজ আদায় শেষে প্রায় হাজার খানেক মুসল্লী উক্ত কবরস্থানের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসুচি পালন করেন। পরবর্তীতে বিক্ষোভ মিছিলটি পুণরায় ভূল্লী বাজারে গিয়ে ঘন্টাব্যাপী বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেন।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন মের্দ্ধাপাড়া জামে মসজিদের সা: সম্পাদক গোলাম রব্বানী, ক্ষেণপাড়া জামে মসজিদের সভাপতি আলহাজ্ব মাহফুজুর রহমান, জেলা পরিষদ সদস্য রওশনুল হক তুষারসহ অন্যরা।

এসময় বক্তরা এ গর্হিত কাজের জন্য আব্দুল আজিজকে ধিক্কার জানান। তারা বলেন, সকলকে একদিন এ পৃথিবী ছেড়ে চলে যেতে হবে, মরনের পর ঠাঁই হবে কবরস্থান। কিন্তু সেই কবরস্থান ভেঙ্গে ফেলে সে মুসলিম সম্প্রদায়ের শত্রুতে পরিণত হয়েছে। তারা আরও বলেন, এ জমি আমরা আমাদের বাপ-দাদার আমল থেকে কবরস্থান হিসেবে ব্যবহার করে আসছি, আজ হঠাৎ করে এতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। আমরা এ বিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এ বিষয়ে বড়গাঁ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রভাত কুমার সিংহ জানান, আমি জানি এটা দুইশত বছরের পুরনো কবরস্থান। কেন আজিজ গং এটাকে ভেঙ্গে ফেলছে তা আমার জানা নেই।

অত্র এলাকার বাসিন্দা ও জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ জুলফিকার আলী ভূট্টো জানান, আমার জন্ম থেকে এটি কবরস্থান হিসেবে দেখে আসছি। সম্প্রতি আজিজ জমিটি নিজের দাবি করে পুরনো কবরগুলো ভেঙ্গে দিয়ে সেখানে গাছের চারা লাগিয়েছে। আমরা এলাকাবাসি এ বিষয়ে সমাধানের চেষ্টা করেও তা করতে পারিনি। এ বিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আজিজের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি।