কুড়িগ্রাম টেক্সটাইল মিলের ইনচার্জের বিরুদ্ধেহয় রাণির শিকারদের প্রতিকার চেয়ে মানববন্ধন

Exif_JPEG_420

মোস্তাফিজুর রহমান, কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম টেক্সটাইল মিলের ইনচার্জ সামছুল আলম শেখ’র বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মানববন্ধন করা
হয়েছে।

কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে সাবেক কর্মচারী, নিহতের পরিবার ও সচেতন এলাকাবাসীর ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করা হয়।

এসময় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সমাজকর্মী সোহেল আহমেদ, ভুক্তভোগী সিকিউরিটি গার্ড আশরাফুল হক শ্রমিক মানিক, নিহত সিকিউরিটি গার্ড নুর আলমের মেয়ে রিনা বেগম প্রমুখ।

বক্তারা মিল ইনচার্জ সামছুল আলম শেখ এর দায়িত্ব পালনকালিন অবস্থায় কোন কারণ ব্যতিরেকে চাকুরীচ্যুত করা এবং পরে আবার মোটা অংকের উৎকোচ দাবী করা, ধাক্কা দিয়ে একজন সিকিউরিটি গার্ডকে হত্যাসহ নানান অভিযোগের প্রতিকার চেয়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

মানববন্ধনে নিহত মিলের সিকিউরিটি গার্ড নুর আলমের কন্যা রিনা পারভীন দাবি করেন, কাজের লোক দিতে না পারায় মিল ইনচার্জের ধাক্কা খেয়ে রক্তাক্ত বাবা চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। তার কোন খরচ দেয়াতো দূরের কথা পাওনাদিও মেটানো হয়নি।

সিকিউরিটি গার্ড আশরাফুল হক দাবি করেন, তিনি বাড়ি থেকে ছুটি কেটে এসে জানতে পারেন তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। ত্রিশ হাজার টাকা না দেয়ায় তাকে পূণর্বহাল করা হয়নি।

এমন বিস্তর অভিযোগের সুষ্ঠু বিচার ও প্রতিকার চেয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন ভুক্তভোগী ও সচেতন নাগরিক সমাজ।#

কুড়িগ্রামে মাস্ক না পড়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা

মোস্তাফিজুর রহমান, কুড়িগ্রাম : করোনা সংক্রমনের দ্বিতীয় ধাপ প্রতিরোধ মূলক সর্তকতায় জনসাধারনের মাস্ক পড়ার উপর বিশেষ নজরদারি শুরু করেছে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসন। নো মাস্ক নো এন্ট্রি এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শনিবার দুপুর ১২ টায় জেলা শহরের ফায়ার সার্ভিস মোড়ে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে পথচারী সহ বিভিন্ন যানবাহনে জনসাধারনের মুখে মাস্ক আছে কিনা তা তদারকি করা হয়।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, এনডিসি হাসিবুল ইসলাম এ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় মাস্ক না পড়ার জন্য ১৫ জনের কাছে জরিমানা আদায় সহ পথচারীদের মাস্ক পরিয়ে দেয়া হয়। এ ছাড়া নাম্বার প্লেট বিহীন পুলিশ লগো ব্যবহারকৃত ১টি মটরসাইকেল জব্দ করা হয়।