সৈয়দপুরে আমজাদের হোসেনের জানাজায় লাখো জনতার ঢল : উপস্থিতিত ছিলেন বিএনপি সহ বিভিন্ন রাজনীতিক দলের নেতা কমীরা

জয়নাল আবেদীন হিরো,সৈয়দপুুর,(নীলফামারী)প্রতিনিধি : নীলফামারীর সৈয়দপুরের ইতিহাসের পরিসমাপ্তি তো একদিকে ইতিহাস রচনা করলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও বর্তমান পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকার ভজে। পাটোয়ারী পাড়ার জানাজায় লাখো জনতার উপস্থিতি।

কয়েক লাখ মানুষের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত জানাজা রংপুর বিভাগের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ জানাযায় রূপান্তরিত হল। জানাজায় অংশ নিয়ে আলোচনায় বক্তব্য দেন বিএনপি’র মহাসচিব মিজা ফখরুল ইসলাম আলমগীর,বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আসাদুল হাবিব দুলু,বিএনপি নেতা সাবেক সাংসদ আখতারুজ্জামান মিয়া,নীলফামারী-৪ সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমান আদেল,নীলফামারী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন,আওয়ামীলীগের নীলফামারী জেলা সভাপতি ও পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ,জেলা বিএনপির আহবায়ক অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর সরকার,উপজেলা আওয়ামীলীগের সা: সম্পাদক মহসীনুল হক মহসীন,পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম ,সা: সম্পাদক মোজাম্মেল হক প্রমুখ।

জানাজায় বিভিন্ন রাজনীতিক দলের নেতা কমী,ব্যবসায়ী,সাংবাদিকসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ অংশ নেয়। জানাজা শেষে পারিবারিক কবর স্থানে তাকে দাফন করা হয় ।এর আগে সকাল ৯ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত শ্রদ্ধা নিবেদনের মরদেহ রাখা পৌরসভা চত্বরে । সেখানে পৌর পরিষদের পক্ষ থেকে কফিনে ফুলের মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয় ।

সকাল ১১টার পর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় বিএনপির অফিসে সেখানে দলের নেতা কমীরা কফিনে ফুলের মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। রাতে মরদেহ সৈয়দপুর পৌঁছালে শীত উপেক্ষা করে হাজার হাজার নারী পুরুষ রাস্তা দুধারে দাড়িয়ে শ্রদ্ধা জানান প্রিয় নেতাকে।

উল্লেখ্য যে ১৪ জানুয়ারী ভোর সাড়ে ৬ টায় ঢাকায় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আমজাদ হোসেন । তিনি পৌর মেয়র পদে প্রাথী ছিলেন। তার মৃত্যুর ফলে সকল পদের নির্বাচন স্থগিত করেন নির্বাচন কমিশন । ১৬ জানুয়ারী নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল।