পার্বতীপুরে আশ্রায়ন প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে : আশ্রয় হবে ২৬২ গৃহহীন দরিদ্র পরিবারের


শাহাজুল ইসলাম, নিজস্ব প্রতিনিধি :
দিনাজপুরের পার্বতীপুরে প্রতিবন্ধী, স্বামী পরিত্যক্তা, অতিশয় বৃদ্ধ, বিধবা, ভিক্ষুক, দুস্থ ২৬২ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে ‘স্বপ্ননীড়’ নামের আবাসন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর মুজিব বর্ষের উপহার হিসেবে এসব আবাসন পাচ্ছে তারা। এতে করে কপাল খুলবে পার্বতীপুর উপজেলার ২৬২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের। এ সকল পরিবারের জন্য পর্যায়ক্রমে বিদ্যুৎ, পানি, খেলার মাঠসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করা হবে। সরকারি খাস জমিতে এসব ঘর নির্মাণ কাজ চলছে। উপকারভোগীদের এখন স্বপ্ন, কখন তারা স্বপ্ননীড়ে উঠবে। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক -১১ জাজরীন নাহার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য সরকারি খাস জমিতে নির্মিত ২৬২টি বাড়ির নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেছেন।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রায়ন-২ প্রকল্পের আওতায় পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের তত্ত্বাবধানে একসাথে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ১৭টি স্থানে ২৬২টি ঘরের নির্মাণ কাজ চলছে। প্রতিটি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের জন্য থাকছে দুই কক্ষ বিশিষ্ট আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত এ ঘর। পার্বতীপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ হাফিজুল ইসলাম প্রামানিক, উপজেলা প্রকৌশলী আহসান হাবীব, পিআইও, ইউপি চেয়ারম্যান, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে একাধিকবার উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভা করা হয়। ইতোপূর্বে জনপ্রতিনিধি, ভূমি ও প্রকল্প অফিসের সমন্বয়ে আশ্রায়ন প্রকল্পের স্থান নির্বাচন করা হয়। ঘরগুলো আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা ভূমি ও গৃহহীনদের দেওয়া হবে।

ইউএনও অফিস সূত্রে জানা গেছে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২০২০-২১ অর্থ বছরে আশ্রায়ন-২ প্রকল্পে ভূমি ও গৃহহীনদের মর্যাদার সাথে বসবাসের লক্ষ্যে সরকারের ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত জমিতে ঘর নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়। উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের বেলাইচন্ডি, মন্মথপুর, রামপুর, পলাশবাড়ী, চন্ডিপুর, মোমিনপুর, মোস্তফাপুর, হাবড়া, হামিদপুর ও হরিরামপুরসহ ১৭টি স্থানে ২৬২ ঘর নির্মাণের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এতে প্রতি পরিবারের জন্য দুই শতক জমি। তার ওপর ২টি রঙ্গিন টিনসহ ইটের ঘর, ২টি প্লেইন শীট জানালা, দরজা ও পাকা মেঝে। বারান্দা, রান্না ঘর ও আলাদা স্থানে টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে। আর এসব প্রতি বাসগৃহে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে।

পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাশিদ কায়সার রিয়াদ বলেন, ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনি সম্পন্ন বাসগৃহ নির্মাণ প্রধানমন্ত্রীর অভিনব ও চমকপ্রদ একটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি। সরকারের মূল উদ্দেশ্য মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন ও কোনো মানুষ যেন বাসগৃহ ছাড়া না থাকে। প্রান্তিক বিভিন্ন জনগোষ্টির নিরাপত্তা দেয়ার লক্ষ্যেই গ্রহণ করা হয়েছে এ প্রকল্প। এর পাশাপাশি ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীনদের কবুলীয় দলিল সম্পাদন ও নামজারী কার্যক্রম করা হচ্ছে।

আগামী ১৫ জানুয়ারির মধ্যে কাজ সম্পূর্ণ করে উপকারভোগীদের বুঝে দেয়া হবে। আগামী ২৩ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব গৃহ উপকারভোগীদের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করবেন বলে উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা গেছে।