গোবিন্দগঞ্জে বিস্ফোরণে ৩ জন নিহতের ঘটনা


গাইবান্ধা প্রতিনিধি :
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের মেকুরাই নয়াপাড়া গ্রামে বুধবার বিকেলে বিস্ফোরণের ঘটনায় জঙ্গি তৎপরতা বা নাশকতার কোন সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম সুত্রে এ তথ্য জানা গেছে। তিনি জানান, মাটি খুঁড়ে পাওয়া মর্টারসেলটি ১৯৭১ সালে বা তার পূর্বের। আবুল কাসেম প্রধানের বাড়িতে এটি কাটতে গিয়ে এই বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে নিহত অজ্ঞাত ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া গেছে। সে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের কুমড়াডাঙ্গা গ্রামের তৈয়ব আলীর ছেলে রানা মিয়া। এই বিস্ফোরণের ঘটনায় বগুড়ার মোকামতলার হাবিবুর রহমানসহ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই বাড়ির ৪ মহিলাকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করার প্রক্রিয়া রয়েছে এবং তদন্তও চলমান রয়েছে বলে পুলিশ সুত্রে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের মেকুরাই নয়াপাড়া গ্রামের আবুল কাসেম প্রধানের বাড়িতে বুধবার বোমা বিস্ফোরেণে অহেদুল ইসলাম (৩৬) ও কুয়েত প্রবাসী বোরহান উদ্দিন প্রধান (৩৬) সহ তিনজন নিহত হয়। নিহত বোরহান উদ্দিন প্রধান ওই গ্রামের আবুল কাসেম প্রধানের ছেলে, অহেদুল ইসলাম একই গ্রামের কবির উদ্দিনের ছেলে।#

গাইবান্ধায় গণহত্যা দিবস পালিত

গাইবান্ধা প্রতিনিধি :
যথাযোগ্য মর্যাদায় ২৫ মার্চ জাতীয় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকালে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি স্তম্ভে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, গাইবান্ধা পৌরসভাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন শহীদ স্মৃতি স্তম্ভে¢ পুষ্পমাল্য অর্পণ করে।

পরে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. সাদেকুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল মতিন। সহকারি কমিশনার জান্নাতুল ফেরদৌস উর্মীর সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মো. মতলুবর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা গৌতম চন্দ্র মোদক প্রমুখ।