গাইবান্ধার পলাশবাড়ির নিখোঁজ সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা ঢাকা থেকে উদ্ধার : পুলিশ সুপারের প্রেস ব্রিফিং


গাইবান্ধা প্রতিনিধি :
গাইবান্ধা পলাশবাড়ীর সোনালী ব্যাংক শাখার সিনিয়র অফিসার মো. আবু সুফিয়ান (৩১) নিখোঁজের ৫ দিন পর ঢাকার আদাবর থানা এলাকার একটি বাড়ি থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। পুলিশ কর্তৃক উদ্ধারের পর ব্যাংক কর্মকর্তা তিনি স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করেছিলেন। বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উল্লেখ করা হয়, গত ২৪ জুন বিকেলে নিজের বিয়ের কেনাকাটার জন্য মো. আবু সুফিয়ান গোবিন্দগঞ্জ থানায় যান। পরে তিনি রাত সাড়ে ৮টার সময় তার বাড়ি ফিরতে দেরী হবে বলে বিষয়টি পরিবারের লোকজনকে জানায় এবং এরপর থেকেই তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ হয়ে যায়। ব্যাংক কর্মকর্তা আবু সুফিয়ান বাড়িতে ফিরে না আসলে তার ভগ্নিপতি মো. জাহিদুর রহমান বাদি হয়ে গত ২৫ জুন পলাশবাড়ী থানায় তাঁর নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার একটি জিডি করেন। এরপর থেকেই গাইবান্ধা জেলা পুলিশ অনুসন্ধান শুরু করে।

সহকারী পুলিশ সুপার (সি সার্কেল) উদয় কুমার সাহা ও পলাশবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাসুদুর রহমানের তত্ত্বাবধানে থানার একটি দল ইন্সপেক্টর (তদন্ত), মো. মতিউর রহমান, এসআই (নি:) সঞ্জয় কুমার সাহা, এএসআই (নি:) রাম চন্দ্র প্রাং, এএসআই (নি:) মো. হুমায়ন কবির ও ফোর্সদের সহায়তায় অনুসন্ধান ও অভিযান চালিয়ে মোবাইল ট্রাকিং প্রযুক্তির মাধ্যমে নিখোঁজ আবু সুফিয়ানকে গত ৩০ জুন বুধবার ঢাকার আদাবর থানার রোড ৩, ৩১নং একটি বাড়ির নিচ তলা থেকে উদ্ধার করে।

প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, তার নিজ বিবাহের আগের দিন গোবিন্দগঞ্জে কেনাকাটা করতে যাওয়ার পরে বিভিন্ন মানসিক টেনশনে সিদ্ধান্ত হীনতায় পড়ে নিজেই মোবাইল ফোন বন্ধ করে মাইক্রোযোগে ঢাকায় চলে যায় এবং স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করে।