১৮ হলেই টিকা নেওয়া যাবে, শিগগিরই বাস্তবায়ন


করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে টিকার সর্বনিম্ন বয়সসীমা ১৮ বছর করার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) আবুল বাশার খুরশিদ আলম।

আজ শুক্রবার মুগদা জেনারেল হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যের ডিজি এসব কথা বলেন।

আবুল বাশার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার সকালে এ বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সময়ের মধ্যেই এর বাস্তবায়ন শুরু করব।

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, গ্রাম পর্যায়ে টিকা প্রয়োগ নিয়ে ভাবা হচ্ছে। গ্রামের মানুষদের অন্যান্য টিকা যেভাবে দেওয়া হয়, সেই ভাবেই করোনা টিকা দেওয়া যায় কি না এ বিষয়ে সরকার পরিকল্পনা করছে। যদি এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হয়, তাহলে জাতীয় পরিচয়পত্র এবং টিকা কার্ড দেখেই টিকা নিতে পারবেন। নিবন্ধনের কোনো প্রয়োজন হবে না।

আবুল বাশার বলেন, করোনা রোগীর চাপ সামাল দিতে প্রস্তুতি রয়েছে। এ সময় ঢাকার বাইরের রোগীদের জন্য বিভিন্ন জেলায় ফিল্ড হাসপাতাল করার পরামর্শও দেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

১৪ দিনের লকডাউনের ফলাফল বিষয়ে স্বাস্থ্যের ডিজি বলেন, এখনো তেমন ফল আমরা দেখছি না। সাধারণত তিন থেকে চারদিন পর এর ফলাফল দেখা যায়। তবে সীমান্ত এলাকায় আগের তুলনায় সংক্রমণ কমেছে। ভারত থেকে অক্সিজেন আনার ব্যবস্থা হচ্ছে। বর্তমানে ২০০ টন চাহিদা রয়েছে।#