আইন অমান্য করায় অনেকেই গুণছেন জরিমানা : কঠোর বিধিনিষেধের ৬ষ্ঠ দিন


সোহেল সানী, পার্বতীপুর দিনাজপুর :
সরকারি বিধিনিষেধ না মানায় দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মা-ভাগিনা হোটেল, রোলেক্স বেকারী, পার্বতীপুর ক্যাফে, পথচারী ও কাপড় ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

আজ বুধবার বেলা ১২টার দিকে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, নতুন বাজার, পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়ক ও কাপড় মার্কেটে এই অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাশিদ কায়সার রিয়াদ। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচানার কাজে সহযোগিতা করেন পার্বতীপুর মডেল থানার এক দল পুলিশ।

এসময় ভ্রাম্যমান আদালত শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সড়কের রোলেক্স বেকারী কে ২ হাজার টাকা, কাপর মার্কেটের পার্বতীপুর ক্যাফে ৩ হাজার টাকা, পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের মা-ভাগিনা হোটেল মালিককে ৫ হাজার, কাপড় ব্যবসায়ী ও পথচারীসহ ১৩টি মামলায় ১৪ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করে।

ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাশিদ কায়সার রিয়াদ বলেন, সরকারি নির্দেশনার বাইরে কেউ দোকান-পাট খুললে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে গত কয়েক মাস ধরে বিধিনিষেধ আরোপ করে তা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে সরকার। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে আট দিনের জন্য শিথিল করা হয়েছিল বিধিনিষেধ। এরপর আবার গত ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে আগামী ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ দিয়েছে সরকার।

বিধিনিষেধের মধ্যে খাদ্য ও খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন/প্রক্রিয়াজাতকরণ মিল কারখানা, কোরবানির পশুর চামড়া পরিবহন, সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং ওষুধ, অক্সিজেন ও কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য উৎপাদনকারী শিল্প-কারখানা ছাড়া বন্ধ আছে সব ধরনের গণপরিবহন, সরকারি ও বেসরকারি অফিস এবং শিল্পকারখানা। বন্ধ রয়েছে দোকান ও শপিংমলও। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষের বাইরে বের হওয়াও নিষেধ। #